আজ পৃথিবী শান্ত পৃথিবীর চিত্র পাল্টে গিয়েছে, নেই ক্ষমতার দাপট, নেই মুসলমানদের ওপর নির্যাতনের সংবাদ…

.( আলহাজ্ব সোহেল আহমেদ )ঃ

আজ পৃথিবী শান্ত। নেই কোনো হানাহানি,নেই কোনো সংঘাত,  নেই কোনো দাঙ্গা – ফ্যাসাদ। স্থবির হয়ে আছে গোটা পৃথিবী। আজকে ভারতের মুসলমানদের কোনো ভয় নাই। কাশ্মীরা আজকে আতংকিত নয়। উইঘুর মুসলমানদের উপর নির্যাতনের কোনো বালাই নেই। ইসরায়েল, ফিলিস্তিনে আক্রমণ করা ভুলে গেছে। গাজায় এখন আর বোমার শব্দ শোনা যায় না।
সিরিয়ায় এখন আর যুদ্ধ হয় না। বাংলাদেশের সীমান্ত এখন উন্মুক্ত। বিএসএফ এর গুলিতে এখন কোনো বাংলাদেশী খুন হয় না।
আমেরিকা এখন আর পারমাণবিক শক্তি প্রদর্শনে ব্যস্ত নয়। পাকিস্তান, ভারতের সীমান্তে এখন থমথমে পরিবেশ বিরাজ করে না। ভ্যাটিকান সিটিতে এখন আর হৈ-হুল্লোড় হয় না। ইন্দোনেশিয়ার ” বালি” তে এখন বিকিনি পরা কোনো রমণী দেখা যায় না।
জার্মান,ফ্রান্সসহ ভ্যাটু দেশগুলো পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন।
ইন্ডিয়া এখন ক্রিকেট নিয়ে বড়াই করে না। অস্ট্রেলিয়া এখন কাউকে স্লেজিং করে না। ইংল্যান্ড কাউকে নিয়ে ব্যঙ্গ করে না।
লা- লিগা, ইংলিশ লিগ,সিরিআ লিগ,প্রিমিয়ার লিগ সব হারিয়ে গেলো অতল গভীরে। কারো তাতে কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই।
আজকে সবাই নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত। নিজেদের দেশ নিয়ে ব্যস্ত। ক্ষমতা হাতিয়ে নেওয়ার কেউ নাই। সবাই নিজ দেশে এবং নিজের ঘরে গৃহবন্দী।
আজকে কেউ লাদেন কিংবা সাদ্দাম অথবা গাদ্দাফি কে খোঁজবে না। আজকে তারাও মুক্ত।

কোথায় গেলো ক্ষমতা, কোথায় গেলো অহংকার, কোথায় গেলো অস্ত্রের ঝনঝনানি। আজান দেয়ার অপরাধে আর মার খেতে হচ্ছে না, এখন আজান হচ্ছে জনসম্মুখে ।, দল মত ধর্ম বর্ন নির্বিশেষে এখন আল্লার প্রতি আত্বসমর্পনের পথে ।
সবাই বেঁচে আছি কিন্তু শ্মশানের মৃতদের মতো।
বেপর্দাশীল সুন্দরী রমনীরাও আজ বেচে থাকার আশায় মুখ ঢেকে আছে, সড়কে নেই মৃত্যুর মিছিল,
ঢাকার নাইট ক্লাবগুলোতে নেই সমাজের উচু শ্রেনীর নামী দামী মানুষগুলোর মদ আর নারীর ফুর্তি ।
ক্যাসিনোতে আজকে ভায়াগ্রা বা শেমপেইন ফ্রি দিলেও কেউ যাবে না। ভারসাই নগরীর ভিসা ফ্রী দিলেও আজকে ফ্রান্সে কেউ যাবে না, কাউকে যদি আজকে রোমের সম্রাট করে তাহলে সে এক্ষুনি ইস্তফা দিয়ে দিবে।
আমরা কতো অসহায়!! কতো অসহায়!! আমাদের মৃত্যু ঘিরে ধরেছে। আমরা বন্দী। ফাঁকি দেওয়ার সুযোগ নাই। তিনি, যিনি মহাবিশ্বের ধারক ও বাহক,হয়তো বলছেন দেখো, মূর্খরা,তোমরা স্বীকার করনি আমার অস্তিত্ব। আমি আছি।এবং এই করোনা ভাইরাসই তাঁর প্রমাণ। সাধু সাবধান , সকল ক্ষমতা, আত্বঅহংকার , অর্থ আর সম্পদের বাহাদুরী শেষ হয়ে যাবে , কারন সকল সম্পদ, আর প্রশংসার মালিক দু’ জাহানের বাদশা রাব্বুল ‌আল আমিন । আসুন আমরা দয়াল নবীজি( স:) এর প্রতি বেশী বেশী দরুদ শরীফ পড়ি , পাচঁ ওয়াক্ত নামাজ সহিভাবে আদায় করি ,আর হালাল রিজিকের প্রার্থনা করি,
আল্লাহ আমাদের মাফ করুন ..
আমিন
……….
………………………..,.আসুন.প্রতিদিন আমরা কলেমা সহ এই দরুদ শরীফ পাচঁ ওয়াক্ত নামাজের পর আমল করি

লাইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলআল্লাহ সল্লাল্লাহু আলান নাবিইল উম্মী ..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »