কুলিয়ারচরে একটি ফলের বাগান কেটে ২লক্ষ টাকার ক্ষতি করেছে দূর্বৃত্তরা

মৌসুমী আক্তার, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি :
মানুষের সাথে মানুষের শত্রুতা হয় এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু ফলের বাগানের সাথে মানুষে শত্রুতা হয় এটা কেমন কথা ? এমনই ঘটনা ঘটেছে শুক্রবার (৫জুন) দিবাগত গভীর রাতে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার পূর্ব আব্দুল্লাহপুর দক্ষিন পাড়া গ্রামে।

দৈনিক পূর্বকণ্ঠ পত্রিকার নিজস্ব প্রতিবেদক শাহীন সুলতানা জানান, গত শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে পরিকল্পিত ভাবে তার ভাসুর মোঃ আঙ্গুর মিয়ার ২০ শতাংশ ভূমিতে রোপিত শতাধিক বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ গাছ কেটে প্রায় ২ লক্ষ টাকার ক্ষতি করে দূর্বৃত্তরা।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বাগানের ক্ষতি করা কোন ভালো মানুষের কাজ নয়। সামনে থেকে ছুড়ি না মেরে পেছন থেকে এমন নোংরা কাজ করা ভীতু কাপুরুষদের কাজ। কি অপরাধ ছিলো ফলন্ত গাছ গুলোর? গাছের মালটা গুলো দেখলে মনটা খুশিতে ভরে যেতো। ছোট একটা ফলের বাগান। সেই বাগানে ছিলো আম, জাম, কাঁঠাল, কতবেল, লিচু, পেঁপে, আমড়া, পেয়ারা ও খেজুর গাছ সহ নানান প্রজাতির ফুল গাছ। এছাড়া চার দিকে লেবু গাছ দিয়ে সাজানো। লেবু গাছে ছিলো ঝাকে ঝাকে লেবু। পেঁপে গাছে পেঁপে পেকে থাকতো। সেই বাগানে কার নজর পড়েছে জানিনা। গ্রাম্য ভাষায় বলে ” তোর সাথে পারলামনা- তোর লাউ গাছ ছিড়ে ফেলবো ”

কিছু দিন আগে কারা যেন পেঁপে গাছ গুলো ভেঙে দিলো,
গতকাল শুক্রবার সকালে ঘুম থেকে উঠেই বাগানে গিয়ে দেখি অনেক স্বাদের মালটা গাছ মাঝখান থেকে ভেঙে দিলো, অনেক গুলো লিচু গাছ উপড়ে ফেলে দিলো, অন্যান্য গাছগুলো ভাঙা, গাছের লেবু গুলো তুলে ফেলে দিলো, সেই সাথে সারা বাগানে পায়খানা করতেও পিছ পা হলো না। এ কেমন শত্রুতা ? কি বিচার হওয়া উচিৎ এসব কাপুরুষদের?

বিচার তো হবেই ইনশাল্লাহ। আল্লাহ আছেন। তিনিই বিচার করবেন। তিনি সবই দেখেছেন “চোরের দশ দিন আর গৃহস্থের একদিন” পাপ বাপকে ও ছাড়ে না।

বাগান মালিক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ আঙ্গুর মিয়ার ছোট ভাই ইমরান (এনায়েত) বলেন, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »