চীনা সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষের এক কর্নেলসহ ২০ ভারতীয় সেনা নিহতের ঘটনায় সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছে

অনলাইন নিউজ ডেক্স:
১৫ জুন রাতে লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষের এক কর্নেলসহ ২০ ভারতীয় সেনা নিহতের ঘটনায় সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছে। চীনকে উপযুক্ত জবাব দিতে প্রস্তুত রয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। এরই মধ্যে লাদাখে পৌঁছে গেছে প্রায় ৫০ হাজার অতিরিক্ত সেনা। টি-৯০ ভীষ্ম ট্যাংক, বসানো হয়েছে ভূমি থেকে আকাশে নিক্ষেপণযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র, এয়ার সার্ভেল্যান্স সিস্টেম।

সামরিক শক্তি আরো মজবুত করতে এবার জোর প্রস্তুতি চালাচ্ছে নয়াদিল্লি। এবার কঠিন সময়ে বন্ধুদেরও পাশে পেতে চলেছে ভারত। আমেরিকা, ফ্রান্স, ইজরায়েল ও রাশিয়া থেকে কমপক্ষে ১০০ কোটি ডলারের প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম পেতে চলেছে ভারত।

আগামী মাসে ভারতীয় বিমান বাহিনীর হাতে আসছে বিশ্বের প্রথম সারির যুদ্ধবিমান হিসেবে পরিচিত রাফাল। বিমানঘাঁটি কিংবা সমুদ্রের বুকে ভাসতে থাকা বিমানবাহী রণতরীর রানওয়ে থেকে উড়ে গিয়ে শত্রঘাঁটিতে হামলা চালাতে সক্ষম এই রাফাল। ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে পরবর্তী রাফাল বিমানগুলো ভারতে পাঠানোর কথা ফ্রান্সের। যদিও ঠিক কত সংখ্যক রাফাল যুদ্ধবিমান ভারত হাতে পাবে, তা স্পষ্ট জানা যায়নি। প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে হওয়া ৫৯ হাজার কোটি রুপির চুক্তি অনুযায়ী প্রথম লটে যে ৩৬টি রাফাল বিমান ভারতের পাওয়ার কথা, তার সব কটি দেশে এসে পৌঁছবে ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরের মধ্যে।

এছাড়াও আপৎকালীন ভিত্তিতে রাশিয়া এবং ইজরায়েলের কাছ থেকে বিপুল অস্ত্রশস্ত্র কিনেছে ভারত। দফায় দফায় সেই সব অস্ত্র ভারতে আনা হচ্ছে। এরমধ্যে রয়েছে, বিপুল সংখ্যক অ্যান্টি-ট্যাংক মিসাইল, রকেট লঞ্চার, বোমা, গ্রেনেড লঞ্চার এবং চালকবিহীন বিমান। রাশিয়ার কাছ থেকে কয়েক হাজার অ্যান্টি-ট্যাংক মিসাইল, অনেকগুলো টি-৯০ ব্যাটল ট্যাংকের ইঞ্জিন, ট্যাংকের অন্যান্য অংশ, বিপুল সংখ্যক মাল্টিব্যারেল রকেট লঞ্চার কিনেছে ভারত।

ইজরায়েলের থেকে কেনা হয়েছে বিভিন্ন ধরনের অত্যাধুনিক আনম্যানড এরিয়াল ভেহিকেল বা চালকবিহীন উড়ন্ত যান এবং ভারতীয় নৌ-সেনার জন্য বিপুল সংখ্যক ক্ষেপণাস্ত্র।

ভারতীয় গোয়েন্দাদের সঙ্গে ক্রমাগত গোপন তথ্য আদানপ্রদান করছে আমেরিকা। বিভিন্ন বিষয়েই মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থার থেকে গোপন তথ্যের পাশাপাশি স্যাটেলাইট চিত্রের মাধ্যমে ইনপুট পাচ্ছেন ভারতীয় সেনা গোয়েন্দারা।

সামরিক বিশ্লেষকদের মতে, লাদাখ পরিস্থিতির জেরে সামরিক তৎপরতা যেভাবে দ্রুত বাড়ছে, তা খুব স্বাভাবিক চিত্র মোটেই নয়। তাই সব রকম পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত থাকতে চাইছে নয়াদিল্লি। সেই কারণেই জরুরি ভিত্তিতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র কেনা হয়েছে। সূত্র- ইন্ডিয়া টাইমস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »