তরুণ লেখক সোহানুর রহমান (সোহান) এর শুভ ভূমিষ্ট ডে

ভৈরব প্রতিনিধি:
আজ ১০ই নভেম্বর ভৈরবের তরুণ লেখক সোহানুর রহমান (সোহান) এর ১৭তম শুভ জন্ম শুভ ভূমিষ্ট ডে সে আজকের এই দিনে কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার ভৈরবপুর মধ্যে পাড়া গ্রামের জমির উদ্দীন মুন্সির বাড়ীর সাংবাদিক ও রাজনৈতিক নেতা এম আর সোহেল সেন ও রহিমা বেগম দম্পতি ঘরে এক মুসলিম সম্ভান্ত পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। সে ভৈরব আদর্শ সরকারী প্রথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রথমিক শিক্ষা জীবন শেষ করে।ভৈরবের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ সরকারী কে.বি. পাইলট মডেল হাই স্কুল থেকে এস এস সি পাশ করে। বর্তমানে ভৈরবের প্রাচীন বিদ্যাপীঠ হাজী আসমত কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীতে অধ্যায়ন রয়েছেন। সোহানুর রহমান (সোহান) ভৈরবের একজন উদ্দীয়মান জনপ্রিয় জননন্দিত তরুণ লেখক, সে যখন ক্লাস ফাইভে পড়ে তখন থেকে লেখা লিখির জগতে তার আত্মপ্রকাশ করেন। বর্তমানে সুনামের সাথে তার লেখা কবিতা ও কলাম বিভিন্ন দৈনিক ও সপ্তাহিক পত্রিকা গুলোতে প্রকাশিত হচ্ছে সে হাজী আসমত কলেজ শাখা ছাত্রলীগের মানবিক বিভাগের (ক্লাস কমিটির) ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও দৈনিক গৃহকোণ পত্রিকার ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি,নাট্য শিল্পী এবং ভৈরব উপজেলা প্রেস ক্লাবের কার্যকরী সদস্য ও দৈনিক ঢাকা প্রতিদিন পত্রিকার ভৈরব প্রতিনিধি ।সোহানুর রহমান (সোহান) এর বাবা বাংলা টিভি ভৈরব প্রতিনিধি পৌর আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক এম.আর.সোহেল ও মাতা রহিমা বেগম এর একমাত্র ছেলে। তার দাদা ৩নং সেক্টরের গ্রুপ কমান্ড বিশিষ্ট বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত ছিদ্দিকুর রহমান (সেন) দৌহিত্র ও চট্রগ্রাম রিজিয়নের ট্যুরিস্ট পুলিশ সুপার আপেল মাহমুদ এর ভাতিজা তরুণ লেখক সোহানুর রহমানের আজ শুভ জন্ম দিন ১৬বছর পেরিয়ে এখন সে ১৭ তার পর্দাপন।
আজ জন্ম দিনে তার এই নিয়ে তার কাছে এ প্রতিনিধি জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি সর্ব প্রথম কৃতজ্ঞতা জানাই আমার জন্মদাতা পিতা -মাতা কে যাদের জন্য আমি এ পৃথিবীর মুখ দেখতে পেয়েছি। জন্ম দিনটা আনন্দের হলে ও জন্ম দিন মানে জীবন থেকে একটি বছর হারিয়ে যাওয়া। এর পর তিনি আরো বলেন আমি গর্বিত আমি একজন স্বাধীনদেশের নাগরিক এবং বাঙালী বলে। আমার দাদা একজন একাত্তরের বীর সেনানী এই তরুণ লেখকের প্রিয় রংহলুদ ও সবুজ পছন্দের খাবার মাছ ও পোলাও দূরান্ত গতিতে ছুটে চলা এই লেখকের। তরুণ লেখক সোহানুর রহমান সোহান যিনি সব সময় গরীব দুঃখীর জন্য কাজ করে যাচ্ছে, তার শুভ জন্ম দিন উপলক্ষে সে সবার কাছে তার জন্য দোয়া চেয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »