পাচারকারীদের গুলিতে লিবিয়ায় নিহত ২৬ বাংলাদেশিদের মধ্যে ৮ জনের বাড়ি ভৈরবে

শামীম আহমেদ :

লিবিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মিজদাহতে কমপক্ষে ২৬জন বাংলাদেশিসহ ৩০জনকে পাচারকারীরা জিম্মি করে গুলিকরে হত্যা করে, সেখানে আরো ১১বাংলাদেশি মারাত্মক আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ৮জনের বাড়ি ভৈরবের বিভিন্ন গ্রামে বলে জানা গেছে।

তাদের সবার পরিবারে চলছে শোকের মাতম। বিভিন্ন সময়ে দালালের মাধ্যমে ইউরোপের ইতালি যাওয়ার উদ্দেশ্যের লিবিয়ায় পাড়ি জমান তারা।

লিবিয়ায় বেনগাজী থেকে মরূভূমি পাড়ি দিয়ে কাজের সন্ধানে যাচ্ছিলেন তারা। সে পথে মানব পাচার কারীরা তাদের জিম্মি করে। ঘটনাস্থল ত্রিপলি শহর থেকে ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে। মানবপাচারকারীরা মোট ৩৮জনকে জড়ো করে। উদ্দেশ্য তাদের কাছথেকে মুক্তিপণ আদায় করে,অপহৃতদের রাজধানী ত্রিপলিতে নেওয়ার চেষ্টাকরা হয়।

তবে দ্রুত মুক্তিপন আদায়ের জন্যে মিজদাহ শহরে নিয়েই শুরু হয় বর্বর নির্যাতন। পরে জিম্মিদের এলোপাতাড়ি গুলিতে ঘটনাস্থলেই অন্তত ২৬ বাংলাদেশি নিহত হয়। এর মধ্যে ৮জনের বাড়ি কিশোরগঞ্জের ভৈরব বলে খবর পাওয়া গেছে ।

ভৈরব থানা সূত্রে জানা যায়, লিবিয়ার অবস্থান রত উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৮জন যুবকের সন্ধান মিলছে না। তাদের মধ্যে সাদেকপুর ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের সাদ্দাম হোসেন আকাশ (২৬) পিতা হাজী মেহের আলী, একই ইউনিয়নের মৌটুপি গ্রামের সোহাগ আহমেদ (১৯) পিতা আব্দুল আলী,আকবর নগর গ্রামের মাহাবুব হোসেন (২৬) পিতা জিন্নত আলী, শ্র্রীনগর ইউনিয়নের সাকিবুল হাসান (২০)পিতা বাহারুল আলম বাচ্চু মেলিটারি,শম্ভুপুর বড় কান্দার জানু মিয়া (২৭) পিতা আ:সাত্তার, একই গ্রামের মামুন মিয়া (২১) পিতা লিয়াকত মিয়া, একই এলাকার সাদ্দাম মিয়া (২০) পিতার নাম জানা যায়নি ও শম্ভুপুরে মোকশেদ আলীর পুত্র মোহাম্মদ আলী (২২) বলে জানা গেছে।

বিভিন্ন মাধ্যম সূত্রে জানা যায়, লিবিয়া অবস্থানরত ভৈরবের আরো আনেক পরিবারের সাথে প্রবাসী যুবকদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ভৈরবের নিখোঁজের তালিকা আরো দীর্ঘ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে নিখোঁজদের এলাকার লোকজনের সাথে কথা বলে জানাযায়।

ভৈরব থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মোঃ শাহিন জানান, উপজেলা থেকে দালালের মাধ্যমে অবৈধ পথে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে না যাওয়ার জন্য আমাদের প্রচারণার চালানো পরেও, দালালদের প্রলোভনে যুবকদের অবৈধ পথে লিবিয়াকে ব্যবহার করছে । বৃহস্পতিবারের গোলাগুলিতে নিহতের কোনো তালিকা আমাদের কাছে আসে নাই। তবে ভৈরবের লিবিয়ায় অবস্থানরত নিখোঁজ পরিবারের তথ্যের ভিত্তিতে ৮ জনের একটি তালিকা আমরা করেছি অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »