বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতা শরীফুল আলম ভৈরব-কুলিয়ারচরে ১২ হাজার পরিবারকে ঈদ উপহার দিলেন

শামীম আহমেদ:
দেশে কোভিট-১৯ করোনাভাইরাসের পরিস্থিতির শিকার হয়ে কর্মহীন হয়ে পড়া অসহায় মানুষের ঈদ আনন্দ যখন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে ঠিক তখনই পবিত্র ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপি সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকএবং আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান মোঃ শরীফুল আলম (সিআইপি) সম্পূর্ণ ব্যক্তি উদ্যোগে আলম গ্রুপের পক্ষ থেকে ১২ হাজার দুস্থ কর্মহীন পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেছেন যাতে তারা পরিবার পরিজন নিয়ে ঈদ আনন্দ করতে পারে।
গত ১৯ মে মঙ্গলবার থেকে আজ ২২ মে শুক্রবার পর্যন্ত দলীয় নেতাকর্মীদের মাধ্যমে কুলিয়ারচর ও ভৈরব উপজেলার ১২ হাজার কর্মহীন অসহায় পরিবারেব ঘরে ঘরে এই ঈদ উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়। এ তথ্য আমাদের প্রতিনিধিকে নিশ্চিত করেছেন কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপি’র ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পবিষয়ক সম্পাদক, কুলিয়ারচর উপজেলা বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক এম এ হান্নান।
সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে ভয়ঙ্কর ভাইরাস করোনা। ভয়ংকর এই ভাইরাসের কারণে বিগত ২৬ মার্চ থেকে দেশে সাধারণ ছুটি ছলছে। দীর্ঘ এই ছুটির কারণে দেশের সাধারণ শ্রমজীবী ও খেটে খাওয়া মানুষগুলো বেকার হয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে পড়েছে বড় বেকায়দায়। এই পরিস্থিতিতে সরকারের পাশাপাশি শ্রমজীবী সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়ানোর লক্ষ্যে ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সভাপতি, আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান মোঃ শরীফুল আলম সম্পূর্ণ ব্যক্তি উদ্যোগে আলম গ্রুপের পক্ষ থেকে কুলিয়ারচর ও ভৈরব উপজেলার অসহায় ও শ্রমজীবী ১২ হাজার পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে খাদ্য সামগ্রী সহায়তা প্রদান করেছেন। ঈদ উপহার হিসেবে দেয়া খাদ্য সহায়তার মধ্যে রয়েছে চাউল, সয়াবিন তেল, সেমাই ও চিনি।
শরীফুল আলম এর আগে করোনা ভাইরাস সংক্রমন শুরু হওয়ার সাথে সাথে তার নিজ এলাকা কুলিয়ারচর ও ভৈরব উপজেলার সুবিধাবঞ্চিত শ্রমজীবী মানুষের হাত ধোয়ার জন্য ১০০ কাটুন আলমের ১নং পঁচা সাবান ও কয়েক হাজার মাস্ক বিতরণ করেছেন। তাছাড়াও হাত ধুয়ার ব্যবস্থাসহ জীবাণু মুক্ত করতে রাস্তায় জীবাণু নাশক স্প্রে করাসহ পেশাগতভাবে দায়িত্ব পালনকালে স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য কুলিয়ারচর ও ভৈরব উপজেলার সাংবাদিকদের মাঝে পিপিই বিতরণ করেছেন।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ৭ এপ্রিল মঙ্গলবার দলীয় নেতা কর্মীদের মাধ্যমে ভৈরব-কুলিয়ারচর দুই উপজেলার প্রায় ৮ হাজার অসহায় পরিবারের মাঝে প্রত্যেকে ৫ কেজি চাউল, ২ কেজি আলু, এক কেজি ডাউল, আধা কেজি তেল ও এক কেজি সাবান দেওয়া হয়।
এছাড়াও ২য় বার গত ৮ ও ৯ মে দলীয় নেতাকর্মীদের মাধ্যমে কুলিয়ারচর উপজেলার ৬ ইউনিয়ন সহ পৌর এলাকার ৫ হাজার পরিবারেব ঘরে ঘরে খাদ্য সামগ্রী হিসেবে চাউল, আলু, ডাউল, সয়াবিন তেল ও সাবান পৌঁছে দেওয়া হয়।
এ ব্যাপারে বিএনপি নেতা শরিফুল আলমের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস এখন সারা বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। আমাদের দেশেও আস্তে আস্তে এর বিস্তর লাভ করছে। এ সংকট থেকে বাঁচতে হলে সামাজিকভাবে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এমনকি যার যার অবস্থানে থেকে সাধ্য অনু্যায়ী সকলকে সমাজের সুধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। তিনি অরো বলেন, আমরা সব সময় চেষ্টা করি যে কোনো প্রকৃতিক দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়াতে, কারণ আমরা মানুষকে ভালবাসি, মানুষের জন্য রাজনীতি করি। কাজেই যে কোন দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে আমরা কুলিয়ারচর ও ভৈরববাসীর পাশে আগেও ছিলাম, আজও আছি, ভবিষ্যতেও থাকবো ইনশাআল্লাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »