ভৈরবের মধ্যেরচর গ্রাম থেকে অটোরিক্সা চালক সুজন মিয়ার হাত পা ও মুখ বাঁধা লাশ উদ্ধার

শামীম আহেমদ:
ভৈরবের শিমূলকান্দি ইউনিয়নের মধ্যেরচর গ্রাম থেকে সুজন মিয়া (৩৮) নামে এক অটোরিক্সা চালকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের হাত, পা ও মুখ বাঁধা ছিলো। আজ রোববার দুপুরে স্থানীয় খবরে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের একটি দল ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে।

নিহত সুজন ওই ইউনিয়নের কান্দিপাড়া গ্রামের সাদির মিয়ার ছেলে। পরিবারের দাবি, সুজনকে মোবাইল ফোনে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। খুনিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ মাঠে কাজ করছে বলে জানায় পুলিশ।

নিহতের স্ত্রী ঝর্ণা বেগম অভিযোগ করেন, আজ ভোরে মোবাইল ফোনে তার স্বামীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায় খুনিরা। পরে হাত, পা ও মুখ বেঁধে তার স্বামীকে হত্যা করে মৃতদেহ সড়কের পাশে ফেলে যায়।

তিনি আরও জানান, গত কোরবানীর ঈদে মাংস বিতরণকে কেন্দ্র করে কান্দিপাড়া গ্রামে শাহআলম নামে এক ব্যক্তি খুন হন। এ ঘটনার জের ধরে প্রতিপক্ষরা তার স্বামীকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তসহ বিচার দাবী করেন।

এ বিষয়ে ভৈরব-কুলিয়ারচর সার্কেলের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মো. রেজওয়ান দীপু জানান, ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। কি কারণে এ ঘটনা ঘটেছে, তা তদন্ত করা হচ্ছে। খুনিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »