ভৈরবে যৌতুক লোভী প্রতারক স্বামী-শামীম মিয়ার বিরুদ্ধে বিচারের দাবিতে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন মোঃছাবির উদ্দিন রাজু,

মোঃছাবির উদ্দিন রাজু,ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি:

ভৈরবের কালিকাপ্রসাধ গ্রামের শামীম মিয়ার বিরুদ্ধে যৌতুকের জন্য ভৈরব উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা সহকারী আফরোজা আক্তারকে মানষিক নির্যাতন ও চাপ প্রয়োগ করে কয়েক লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়া এবং অনুমতি ব্যতিরেকে দ্বিতীয় বিবাহ করার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় ন্যায় বিচারের আশায় যৌতুক নিরোধ আইনের ৩ ধারায় কিশোরগঞ্জ আদালতে মামলা দায়ের করেছেন নির্যাতিতা স্ত্রী- আফরোজা আক্তার ।
গত ২৬ শে নভেম্বর, বৃহস্পতিবার সন্ধায় “বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ)” এর ভৈরব দূর্জয় মোড় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ভৈরবের কালিকাপ্রসাধ গ্রামের শামীম মিয়ার বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন তার নির্যাতিতা স্ত্রী আফরোজা আক্তার। সংবাদ সম্মেলনে তিনি তার লিখিত বক্তব্যে জানান, বিগত ২৪/০২/২০১২ ইং তারিখে ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক রেজিঃকৃত কাবিনমূলে পারিবারিকভাবে কালিকাপ্রসাধ পঃ পাড়া নুরুল ইসলাম মাস্টারের ছেলে মোঃ শামীম মিয়ার (৩৩) বিবাহ হয়। বিয়ের পর আফরোজা তার বাবার বাড়ি থেকে তার স্বামীকে ব্যবসায়িক সুবিধার জন্য প্রায় ৬,০০,০০০/-(ছয় লক্ষ) টাকা দিলে সে মুদির দোকানের বাহানায় পুরো টাকা আত্বসাত করে ফেলে। টাকার ব্যপারে জানতে চাইলে শুরু করে অমানুষিক নির্যাতন । এভাবে দিনের পর দিন অসহনীয় নির্যাতন করতে করতে চলতি বছরে প্রথম স্ত্রীর (আফরোজা আক্তার) অনুমতি ব্যতিত দ্বিতীয় বিবাহ করেন শামীম। অতঃপর পুনরায় ব্যবসা করার বাহানায় আরো ৩,০০,০০০/-(তিন লক্ষ) টাকা যৌতুক সরুপ দাবী করে।দিতে অপরাগতা প্রকাশ করিলে শারিরীক নির্যাতন করে সংসার করবে না বলে ঘরের বাহিরে বের করে দেয়। এই ব্যপারে আফরোজা আক্তার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
এ ব্যপারে তার স্বামী শামীম মিয়াকে মোবাইলে জানতে চাইলে তিনি বলেন ঘর,দোকান ও ফার্মেসীতে আমারও টাকা এবং শ্রম আছে। তবে মেয়েটি কিছু মিথ্যাও বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »