ভৈরবে সাবেক কাউন্সিলর ও বর্তমান কাউন্সিলরের সমর্থকদের হামলার ঘটনায় কয়েল ফ্যাক্টরী ও বাড়ী-ঘর ভাংচুর সাবেক কাউন্সিলর আশরাফ আলী পুলিশের হাতে আটক

শামীম আহমেদ:
আসন্ন ভৈরব পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড জগন্নাথপুর দক্ষিণ পাড়া এলাকার কাউন্সিলর পদপ্রার্থী সাবেক কাউন্সিলর আশরাফুল আলম আশরাফ ও তার সমর্থিত লোকদের অতর্কিত হামলায় আহতহন বর্তমান কাউন্সিলর হাজী ফজলু মিয়ার সমর্থক ও কর্মী হাসান মাহমুন পিন্টু ও ফেরদৌস মিয়া।
২০ ফেব্রুয়ারি শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় জগন্নাথপুর এলাকার কমলার মোড়ে এই ঘটনাটি ঘটে।
এই ঘটনায় কাউন্সিলর পদপ্রার্থী সাবেক কাউন্সিলর আশরাফুল আলম আশরাফ কে প্রধান আসামি করে আরো ২৬ জনের নাম উলে­খসহ ভৈরব থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন হাসান মাহমুন পিন্টু।
এই ঘটনার জের ধরে পরের দিন আজ ২১ ফেব্রুয়ারী দুপুর থেকে সাবেক কাউন্সিলর আশরাফুল আলম আশরাফ ও বর্তমান কাউন্সিলর হাজী ফজলু মিয়ার সমর্থকদের মাঝে পাল্টাপাল্টি সংঘর্ষ হয়। উক্ত ঘটনায় আশরাফ আলীর সমর্থক কয়েল ফ্যাক্টরীর মালিক তোফাজ্জল হোসেন এর কয়েল ফ্যাক্টরীর প্রায় ৩ কোটি টাকার মালামাল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানান। এদিকে বর্তমান কাউন্সিলর হাজী ফজলু মিয়ার ভাতিজী সুমি বলেন, আমার ঘরে রক্ষিত জমি ক্রয় করার জন্য নগদ ১০ লক্ষ টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট করে এবং আশরাফ আলীর লোকজনেরা মারধর করে ঘরের ফার্নিচার ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে।
পৌর কাউন্সিলর পদপ্রার্থী ও বর্তমান কাউন্সিলর হাজী ফজলু মিয়া জানান, এলাকায় আমার জনপ্রিয়তা বেশি। জনগণ আমাকে ভালোবাসেন। আমার প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী বুঝে ফেলেছেন তার পরাজয় নিশ্চিত। তাই সে আমার সুনামক্ষুন্ন করার এবং নিবার্চন বানচাল করার লক্ষ্যে বার বার নাশকতার প্রশ্রয় নিয়ে আমাদের উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করছে।
গতকাল ২০ ফেব্রুয়ারী আমার নির্বাচনের একজন একনিষ্ঠা সমর্থক হাসান মাহমুদ পিন্টুর উপর বার বার হামলা করতে চাই। সে অনেকদিন যাবত পরিকল্পনা করে আসছিল হামলা করার। গতকাল সুযোগ পেয়ে সে ও তার গুণ্ডাবাহিনি নিয়ে হাসান মাহমুন পিন্টুর উপর হামলা চালায়। এতে সে আহত হয় এবং তার সাথে আমার এক ভাতিজাও আহত হয়, তাছাড়া আজ ২১ ফেব্রুয়ারী দুপুরে আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে আমার ভাতিজী সুমি কে মারধর করে তার ঘরের ফানির্চার ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে তার ঘরে জমি ক্রয় করার জন্য নগদ ১০ লক্ষ টাকা এবং ইউরো ডলার ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায় আশরাফ আলীর লোকজন। আমি এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে তাদের বিচারের দাবি জানাই।
এই বিষয়ে কাউন্সিলর পদপপ্রর্থী সাবেক কাউন্সিলর আশরাফুল আলম আশরাফ মুঠোফোনে জানান, ঘটনাটি পুরো মিথ্যা এবং বানোয়াট। আমাকে হয়রানি করার লক্ষ্যে আমার নামে মিথ্যা প্রচার করে যাচ্ছে। তাদের টাকা পয়সা বেশি বরং তারা তাদের গুণ্ডাপাণ্ডা দিয়ে আমাদের উপর হামলা করে। এতে করে আমার সমর্থিত কিছু লোক আহত হয়। আমিও এই বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিব।
ভৈরব থানা অফিসার ইনচার্জ মো. শাহীন বলেন, ঘটনাটির বিষয়ে একটি অভিযোগ পত্র পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। উক্ত ঘটনায় সাবেক কাউন্সিলর ও বর্তমান ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আশরাফ আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়েছে।
উক্ত ঘটনায় ভৈরব-কুলিয়ারচর সার্কেল সহকারী পুলিশ সুপার রেজুয়ান দিপু বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য ৩ রাউন্ড রাবাল বুলেট ফায়ার করি এবং সাবেক কাউন্সিলর ও বর্তমান ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আশরাফ আলীকে আটক করা হয়। তাছাড়া
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এলাকায় পুলিশ ও র‌্যাব এর সদস্যরা মোতায়ন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »