ভৈরবে বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী হাজী শাহিনের নির্বাচনী এস্তেহার ঘোষণা ও মতবিনিময় সভা

রিপোর্ট,শামীম আহমেদঃ

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী হাজী শাহিনের নির্বাচনী এস্তেহার ও  সংবাদ সম্মেলন করে পৌর নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার দাবি জানিয়েছেন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীসহ বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক ও কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি শরীফুল আলম ও ভৈরব উপজেলা ও পৌর বিএনপি এবং অঙ্গসংগঠনের নেতারা। এ সময় নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা দেওয়ার অভিযোগ করেন তাঁরা। আজ ২৪ ফেব্রুয়ারী বুধবার দুপুরে ভৈরব উপজেলা বিএনপির পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করা হয়।
শহরের কমলপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় উপজেলা বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত ওই সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. রফিকুল ইসলাম।

এ সময় বিএনপির দলীয় মনোনয়নপ্রাপ্ত পৌর বিএনপির আহ্বায়ক মেয়র পদপ্রার্থী ও সাবেক মেয়র হাজি মো. শাহিন বক্তব্য দেন। এ ছাড়া বক্তব্য দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি মো. শরীফুল আলম, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক প্যানেল মেয়র মো. আরিফুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী হাজি শাহিন তাঁর বক্তব্যে আসন্ন ভৈরব পৌর নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি দাবি জানান। তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘তিন দিন ধরে আমার প্রচার-প্রচারণায় বাধা দিচ্ছে যুবলীগ নেতারা। পৌর এলাকার চণ্ডীবের কালীপুরসহ বিভিন্ন স্থানে আমাকে সভা করতে বাধা দেয় তারা।’

মেয়র পদপ্রার্থী আরও জানান, তাঁর পথসভার নির্ধারিত স্থানে যুবলীগের কর্মীরা সভা ডেকে ঝগড়ার সৃষ্টি করতে চাইছে। এ ছাড়া তাঁর পোস্টার, ব্যানার ছেঁড়াসহ কর্মীদের মারধর করা হচ্ছে।

এ সময় মেয়র পদপ্রার্থী হাজি মো. শাহিন নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। তিনি বিজয়ী হলে আধুনিক ও বসবাসযোগ্য একটি পৌর শহর গড়ে তোলাসহ নাগরিক সেবার একাধিক পরিকল্পনা তুলে ধরেন।

মেয়র পদপ্রার্থী আরও বলেন, ‘ভৈরব পৌর নির্বাচনে ইভিএমে ভোটগ্রহণ হবে। কিন্তু কীভাবে ভোট দিতে হবে সেই প্রচারণা নেই। ইভিএম পদ্ধতিটি নতুন। এ কারণে কয়েকদিন আগ থেকে নির্বাচন কমিশনের এ বিষয়ে প্রচারণা চালানো উচিত ছিল।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »