রাষ্ট্রপতির স্নেহাস্পদ ছোট ভাই আব্দুল হাইয়ের মৃত্যুতে ইটনা উপজেলা প্রেসক্লাবের শোক প্রকাশ

ইটনা প্রতিনিধি:
মহামান্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের স্নেহাস্পদ ছোট ভাই ও উনার সহকারী একান্ত সচিব, মিঠামইন আবদুল হক সরকারী কলেজের সাবেক সহকারী অধ্যাপক, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হাই ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) শুক্রবার (১৭ জুলাই)রাত সোয়া একটায় মৃত্যুবরণ করেছেন ( ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহে রাজিউন)। তার মৃত্যুতে ইটনা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক এবি মোহাম্মদ আলী খান,সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক মোঃখায়রুল ইসলাম ভূইয়া প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন এবং যৌথ স্বাক্ষরিত এক শোকপত্রে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনাসহ শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন।
উল্লেখ্য যে মরহুম আবদুল হাই ১৯৫৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলাধীন কামালপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে জন্ম গ্রহন করেন। তাঁর পিতা নাম হাজী তায়েব উদ্দিন ও মাতার নাম তমিজা খাতুন। ৯ ভাই-বোনের মধ্যে তিনি অষ্টম এবং ভাইদের মধ্যে চতুর্থ। মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। তিনি স্ত্রী ,এক পুত্র ও দু’কন্যা সন্তান সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান।
তিনি ছিলেন একজন সদালাপী ও বিনয়ী মানুষ হিসেবে সর্বমহলে জননন্দিত।বর্তমানে আধুনিক মিডিয়ার যুগে সুযোগ থাকলে মানুষ নিজকে প্রকাশের কতই না চেষ্টা করে। কিন্তু তিনি ছিলেন ব্যতিক্রম। জাতীয় সংসদ ও রাষ্ট্রপতি ভবনে উচ্চ পদে আসীন থেকেও তিনি কোন প্রকার আত্মগরিমা বা অহংবোধে বিমোহিত ছিলেন না। নিজকে প্রকাশ কিংবা জাহির করার বিন্দুমাত্র স্পৃহা তাঁর মধ্যে আমরা দেখিনি। ক্ষমতার মোহ,লোভ,অর্থ বিত্ত বৈভব কোন কিছুই তাকে আকৃষ্ট করতে পারেনি। অগণিত মানুষ,মানুষের কল্যাণ এবং তাদের পাশে থাকায় ছিল তাঁর স্বভাবজাত বৈশিষ্ট্য |

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Translate »